Header

আপনার ভবনের যাবতীয়
হিসেবের ভাবনা, আর না!
যেকোন ভবনের প্রতি মাসের বিলিং
এবং একাউন্টস এর সহজ সল্যুশন
vobon.xyz headers

ভবন.xyz কি?

 

answer_what_is_vobon

যেকোন এপার্টমেন্ট, শপিং, ও কমার্শিয়াল ভবনের প্রতিটি ইউনিটের প্রতি মাসের আয়/ব্যয়, বিলিং এবং ব্যালেন্স শিট তৈরি করতে গিয়ে বিপুল সময় ও পরিশ্রম যেমন প্রয়োজন হয়, তেমনি প্রচুর ভুল হয়।

Vobon.xyz হচ্ছে যেকোন ভবনের যাবতীয় হিসেব নিখুঁতভাবে সামলানোর একটি সহজ প্লাটফর্ম। এটি দিয়ে সব কিছু করে ফেলা যায় মিনিটের ভেতরেই। Vobon.xyz ওয়েবসাইট থেকে যেমন ব্যবহার করা যায়, তেমনি অ্যাপ থেকেও ব্যবহার করা যায়।

 

ভবন.xyz কি?

এটি কারা ব্যবহার করবেন?

 

এটি কারা ব্যবহার করবেন?

 

answer_kara_use_korbe

প্রতিটি ভবন কিংবা এপার্টমেন্ট/মার্কেট/অফিস এসোসিয়েশন এর একজন দায়িত্বপ্রাপ্ত ব্যক্তি থাকেন, যিনি প্রতি মাসে যাবতীয় একাউন্টস ও বিলিং এর হিসেব করেন। মূলত এই সল্যুশনটি তিনিই ব্যবহার করবেন।

এটি দিয়ে কি কি করা যাবে?

 

answer_ki_korajabe

প্রতি মাসের ভাড়া, বিদ্যুৎ/পানি/গ্যাস সহ ইউটিলিটি বিল তৈরি
বিভিন্ন বিল (সার্ভিস চার্জ, ডেভেলপমেন্ট ফি, লেট ফি ইত্যাদি) তৈরি
খরচের বিল (স্টাফের বেতন, কমন বিদ্যুৎ বিল ইত্যাদি) তৈরি
ব্যাংক এবং ক্যাশ ব্যালেন্স চেক
ব্যাল্যেন্স শিট সহ মাসিক আয় ব্যয় এর হিসাব
ইনভেন্টরি ও স্টক মেইনটেইন
SMS নোটিফিকেশন ও ফাইল প্রিন্ট
এপার্টমেন্ট মিটিং মিনিটস
 

এটি দিয়ে কি কি করা যাবে?

খরচ কত পড়বে?

 

খরচ কত পড়বে?

Vobon.xyz Price
 

answer_খরচ কত পড়বে?

"ভবন" ব্যবহার এর খরচ খুবই সামান্য। এককালীন একটি ফি দিয়ে মাসে মাত্র ৪৯ টাকা থেকে প্যাকেজ প্রাইস শুরু।

 

Customer-1

 
 
যখন আমি দেশে থাকতাম, আমাদের তিনটা মার্কেটের ভাড়াটিয়াদের প্রতিমাসের বিল তৈরি সহ যাবতীয় হিসাব নিকাশ আমি নিজেই দেখা শোনা করতাম। হাতে বিল তৈরি করাটা ছিল একটু সময় সাপেক্ষ ব্যাপার এবং মাঝে মাঝে ভুল ও হত। কানাডা আসার পর আমার ছোট ভাই সব দেখা শোনা করে কিন্তু আমি জানতে পারছিলাম না, কোন মাসে কত ভাড়া আদায় হল, কার কাছে কত বকেয়া পাওনা ইত্যাদি। ভবন ক্লাউড ভিত্তিক অ্যাপ হওয়াতে আমি কানাডা বসেই সব কিছু দেখতে পারছি যখন তখন। আর আমার ভাড়াটিয়াদের বিল ও তৈরি হয়ে যাচ্ছে খুবই অল্প সময়ের মধ্যে।

আমিনুল ইসলাম
কানাডিয়ান প্রবাসী
সাস্কাটুন, কানাডা।

Customer-2

 
 
প্রতি মাসে আমাকে ৪০০ এর মত বিল তৈরি এবং মানি রিসিপ্ট হাতে লিখতে হত। আমি ৪-৫ টা লেজার বই মেইনটেইন করতাম এপার্টমেন্টের সমস্ত আয় ব্যয়ের হিসাব রাখার জন্য। যখন তখন ফ্লাট ওনাররা তাদের বকেয়ার তথ্য জানতে চাইত। আর এ সমস্ত কাজ করতে প্রচুর সময় ব্যয় হত এবং তৎক্ষণাৎ সব রিপোর্ট দিতে পারতাম না। আর এখন, একটা মাত্র মাউসের ক্লিকেই প্রতিমাসের সমস্ত বিল তৈরি করে ফেলি! আয় ব্যয় সহ ব্যালেন্স শিট ভবন অ্যাপটি অটোমেটিক তৈরি করে দিচ্ছে। মোবাইলে ম্যাসেজ দিয়ে জানিয়ে দিচ্ছি ফ্ল্যাট ওনারদের।

আজিজুল হাকিম অপু
ম্যানেজার, অন্তরা অনন্যা পরমা ফ্ল্যাট মালিক সমিতি লিঃ
সিদ্ধেশ্বরি, রমনা, ঢাকা।
 

Customer-3

 
 
আমাদের এপার্টমেন্টের কন্সট্রাকশানের কাজ চলেছে। রড, সিমেন্ট, বালি ও আনুসাঙ্গিক কোন খাতে কত খরচ হচ্ছে এবং কোন পার্টনার (ফ্ল্যাট ওনার) কত টাকা দিয়েছেন এবং কত পাওনা আছে সব হিসাব নিয়ে বেশ ঝামেলায় ছিলাম এবং একটা সহজ সিস্টেম খুজছিলাম। কাকতলিয়ভাবে অনলাইনে ভবন সমন্ধে জানতে পারলাম। আসলে আমি যা খুজছিলাম সেটা পেয়ে আমি খুব খুশি কারন আমি মোবাইলে বসেই পেয়ে যাচ্ছি আমার প্রয়োজনীয় সমস্ত রিপোর্ট, আর হিসেবের স্বচ্ছতাও থাকছে সবার কাছে।

মুশফিকুর রহমান
ভাইস প্রেসিডেন্ট, অফিসার’স টাওয়ার-৩২
ভাটারা, গুলশান, ঢাকা।

Customer-4

 
 
আমি একজন প্রবাসী। আমার বাড়ি ভাড়া ঠিক মত আদায় হল কিনা এটা নিয়ে খুব চিন্তিত ছিলাম। এখন আমি বিদেশে থেকেও সব কিছু দেখাশোনা করতে পারছি ভবন অনলাইন হওার কারনে। এখন অনেক নিরাপদ লাগছে আমার এই অ্যাপটির কারনে, ভাড়া আদায় হল কি হল না সেটা তৎক্ষণাৎ জানতে পারছি। তাছাড়া আমার ভাড়াটিয়ারাও ভাড়া দেওয়ার সাথে সাথেই তাৎক্ষনিক মোবাইলে ম্যাসেজ পেয়ে যাচ্ছেন। ধন্যবাদ আপনাদেরকে এরকম একটা সার্ভিস বাংলাদেশে শুরু করার জন্য।

মোঃ ইসমাইল সোহেল
ভবনের মালিক
পশ্চিম মোহরা, চাঁদগাও, চট্টগ্রাম।